শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ০২:৪১ অপরাহ্ন

আনুষ্ঠানিক বিজয়ের পর ট্রাম্পের ভর্ৎসনায় বাইডেন

অনলাইন ডেস্ক
আনুষ্ঠানিক বিজয়ের পর ট্রাম্পের ভর্ৎসনায় বাইডেন
ছবি: এএফপি ডোনাল্ড ট্রাম্পের তীব্র ভর্ৎসনা করেছেন ডেমোক্র্যাটদলীয় নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সাবেক এই ভাইস প্রেসিডেন্টের বিজয়ের বৈধতা নিয়ে সমালোচনা করায় প্রতিদ্বন্দ্বীকে তুলোধোনা করলেন তিনি।

ইলেকটোরাল কলেজ ভোটাররা তাকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে বিজয়ী ঘোষণার পর এক বক্তৃতায় বলেন, আমেরিকাকে টিকিয়ে রাখার এই লড়াইয়ে গণতন্ত্র জয়ী হয়েছে। এখন ঐক্যবদ্ধ হওয়া ও সেরে ওঠার সময়। পুরো ইতিহাসজুড়ে আমরা এমনটিই করেছি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য মিলেছে।

ডেলওয়ারের নিজ শহর উইলমিংটনে ১৩ মিনিটের ভাষণে তিনি আরও বলেন, বহু আগে দেশে গণতন্ত্রের বহ্নিশিখা জ্বালানো হয়েছিল। করোনার মতো মহামারী কিংবা ক্ষমতার অপব্যহারেও তা নেভাতে পারবে না।

তিনি বলেন, আবারও আমেরিকা, আইনের শাসন, সংবিধান ও জনগণের ইচ্ছার জয় হয়েছে। আমাদের পরীক্ষিত গণতন্ত্র তার সক্ষমতা দেখিয়েছে।

এ সময় আমেরিকার সব নাগরিকের প্রেসিডেন্ট হওয়ার প্রতিশ্রুতি তিনি পুনর্ব্যক্ত করেন। বলেন, ভাইরাস ও অর্থনীতিকে সামনে রেখে আমাদের কঠিন পরিশ্রম করে যেতে হবে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডেমোক্র্যাটদলীয় জো বাইডেনকে নিশ্চিত করেছে দেশটির ইলেকটোরাল কলেজ ভোট।

পরাজয় মেনে নিতে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অস্বীকৃতির পরও রাজ্যগুলোর কর্তৃপক্ষ হিসাবে নভেম্বরের নির্বাচনে বাইডেনের বিজয়ে সমর্থন দিয়েছেন তারা।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচকরা সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্টকে ৩০৬ ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের নির্ভেজাল সংখ্যাগরিষ্ঠতায় সায় দিয়েছেন। বিপরীতে ট্রাম্প পেয়েছেন ২৩২টি ভোট। চার বছর আগে একই ধরনের সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় এসেছিলেন তিনি।

নির্বাচকরা যখন তাদের ভোট দিতে জড়ো হন, তখন বেশ কয়েকটি রাজ্যে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। করোনা মহামারীর কারণে সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে তারা একত্রিত হয়েছিলেন।

এখন এই ফল রাজধানী ওয়াশিংটনে পাঠানো হবে। পরে আগামী ৬ জানুয়ারিতে কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশেনে তা হিসাব করা হবে। ওই অধিবেশেনের সভাপতিত্ব করবেন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স।

এবারের নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে বলে অভিযোগ করে যাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকরা। তবে বাইডেন ও ট্রাম্পকে যে ইলেকটোরাল কলেজ ভোট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে, তাতে পরিবর্তন আসার কোনো সম্ভাবনা নেই।

জনপ্রিয়তার হিসাবেও ট্রাম্পের চেয়ে ৭০ লাখ ভোটে এগিয়ে রয়েছেন বাইডেন। ক্যালিফোর্নিয়ার ৫৫টি ভোট ডেমোক্র্যাটদলীয় প্রার্থীকে এগিয়ে নিয়ে গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *