সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ১২:৩০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালরাত্রির নৃশংস বর্বরতার চিত্র প্রদর্শনী ও প্রতিবাদ সভা করোনায় মৃত্যু-শনাক্ত বেড়েই চলেছে, আরও ৩০ প্রাণহানি কমনওয়েলথের শীর্ষ ৩ অনুপ্রেরণীয় নারী নেতৃত্বের তালিকায় শেখ হাসিনা ভারত-ইংল্যান্ড টেস্ট নিয়ে যা বললেন ইনজামাম অনন্ত-বর্ষার শতকোটি টাকার ছবি আসছে ঈদুল আজহায় ‌‘নেতাকর্মীদের সমাবেশে আসতে বাধা দিচ্ছে পুলিশ’ রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে বাধ্য নয় বাংলাদেশ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন বিকেলে ৭ কলেজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে জরুরি সভা চলছে নোয়াখালিতে সাংবাদিক হত্যার প্রতিবাদে আখাউড়ায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

৩ বছর শেষ না হতেই এক প্রকল্পে বাড়ছে ৪১ কোটি টাকা!

দেশবার্তা ডেস্ক:
২০১৮ সালের জানুয়ারিতে শুরু হয় কৃষি তথ্য সার্ভিস আধুনিকায়ন ও ডিজিটাল কৃষি তথ্য ও যোগাযোগ শক্তিশালীকরণ শীর্ষক একটি প্রকল্প। যা শেষ করার কথা ছিল ২০২০ সালের জুনের মধ্যে। নির্দিষ্ট সময়ে প্রকল্পের কাজ শেষ হয়নি। শুরুতে প্রকল্পটির ব্যয় ধরা ৬৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা ধরা হলেও ৩ বছর না যেতেই ৪১ কোটি টাকা বাড়ানোর জন্য করা হয়েছে প্রস্তাব।

বিষয়টি নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একইসঙ্গে এ ইস্যুতে প্রশ্নও তুলেছেন সরকার প্রধান। গত মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় সংশোধনের জন্য উত্থাপিত এ প্রকল্প নিয়ে আলোচনার সময় শেখ হাসিনা বলেন, ‘সব প্রকল্পে এমন দেরি হয় কেন? সব প্রকল্প যেন যথাসময়ে শেষ হয় সেই ব্যবস্থা নিন। কেন বিলম্ব হচ্ছে, সেটার কারণ অনুসন্ধান করুন।’

এ বিষয়ে পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য জ্যেষ্ঠ সচিব ড. শামসুল আলম জানান, কৃষি তথ্য সার্ভিস আধুনিকায়ন ও ডিজিটাল কৃষি তথ্য ও যোগাযোগ শক্তিশালীকরণ প্রকল্পের মেয়াদ ও ব্যয় বৃদ্ধি করে সংশোধনের জন্য এদিন একটি প্রস্তাব বৈঠকে উপস্থাপন করা হয়।

ড. শামসুল আলম বলেন, প্রকল্পটি নিয়ে আলোচনার সময় সরাসরি প্রকল্প পরিচালকের কাছে প্রধানমন্ত্রী জানতে চেয়েছেন, প্রকল্প শেষ করতে না পারার কারণ কী? কিন্তু প্রকল্প পরিচালক বৈঠকে উপস্থিত না থাকায় অন্য কেউ আর বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নের উত্তর দেননি। তখন প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নের পদক্ষেপ নেন। সব প্রকল্পে দেরি হওয়ার কারণ কী? এটা একটা ছোট টাকার প্রকল্প। এটা তো এত দিন লাগার কথা না।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী আরো বলেছেন, প্রকল্প তো শেষ হওয়ার পথে, সময় আরো দুই বছর বাড়াচ্ছেন কেন? ৬৮ কোটি টাকাকে ১০৯ কোটি টাকা করা হচ্ছে সময় বাড়ানোর জন্য।

প্রকল্প পরিচালককে ডেকে ওই প্রস্তাব পর্যালোচনা করার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, সকল প্রকল্প যেন যথাসময়ে শেষ হয় সেই ব্যবস্থা নিন। এবং কেন দেরি হচ্ছে, সেই কারণ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *